Blog Details

ওয়াশিং মেশিন - জেনে রাখুন এ বিষয়গুলো!

admin /


ওয়াশিং মেশিন – প্রাত্যহিক জীবনকে সহজ করা  একটি অন্যতম ঘরোয়া মেশিন। প্রযুক্তির অবদানে মানুষের জীবনযাত্রা অনেকটা সহজ হয়েছে।একজন মানুষের ব্যক্তিত্বকে অনেকটা প্রকাশ করে পরিষ্কার ও পরিপাটি পোশাক। অনেক সময় ব্যস্ততার দরুন হাতে কাপড় ধোয়া সম্ভব হয়ে উঠেনা। আর তখন ভরসা হচ্ছে কাপড় ধোয়ার মেশিন মানে যেটি আমরা ওয়াশিং মেশিন নামে চিনি। এ মেশন শুধু কাপড় ধুতেই ব্যবহৃত হয়না, শুকাতেও সাহায্য করে।

মাঝেমাঝে দেখা যায় একসাথে অনেক কাপড় জমে যায় ধোয়ার। বিশেষ করে কর্মজীবীদের ক্ষেত্রে এমনটা হয়। বেশি কাপড় হাতে কেঁচে ধোয়া কষ্টের হয়ে যায়। এই সমস্যা থেকে রেহাই দিতে পারে ওয়াশিং মেশিন। । বাজারে তিন ধরনের ওয়াশিং মেশিন পাওয়া যায়। অটোমেটিক, সেমি অটোমেটিক আর ম্যানুয়াল।বৈশিষ্ট্যের দিক দিয়ে ওয়াশিং মেশিন –টপ লোডিং এবং ফ্রন্ট লোডিং দু ধরনের পাওয়া যায়।

কাপড় থেকে দাগ তোলার কিছু টিপসঃ

-        কলারের ঘামের দাগ তুলতে শ্যাম্পু লাগিয়ে ভালোভাবে ঘষুন তারপর ধুয়ে নিন।

-        কাপড়ে মরিচার দাগ পড়লে ভিনেগার ও লবনের পেস্ট তৈরী করুন আর মরিচালাগা স্থানে পেস্ট লাগিয়ে রোদে বা গরম পানির ভাপে রাখুন। তারপর ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।

-        কলমের দাগ পড়লে টমেটর রস ব্যবহার করুন। একটি কাপড়ে টমেটোর রস নিয়ে দাগ লাগা জায়গায় বেশ ভাল করে ঘষুন। কিছুক্ষন রেখে তারপর বেশি পানিতে ধুয়ে নিন।

-        চায়ের দাগ পড়লে চিনি দিয়ে দাগ তুলুন। অল্প পানিতে বেশি করে চিনি গুলিয়ে মিশ্রণ বানান।কাপড়ের যে জায়গায় দাগ লেগেছে তা সেই মিশ্রণে কিছুক্ষন ভিজিয়ে রাখুন। তারপর নরমাল সাবান বা ডিটারজেন্ট দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

-        অনেকেই পান খেতে পছন্দ করেন কিন্তু পানের রস কাপড় নষ্ট করে দেয়। তাই পানের দাগ তুলতে দাগের উপর একটি ছোট কাপড় বিছিয়ে উপরে আলু দিয়ে ঘষুন। এতে দাগ সহজে উঠে যাবে।

 

ওয়াশিং মেশিনের সুবিধাঃ

১) খুব দ্রুত কাপড় ধোয়া যায় ওয়াশিং মেশিনে। সময় সাশ্রয়ী ও কষ্টও কমিয়ে দেয়।

২) কিছু কিছু ওয়াশিং মেশিনে হট ওয়াশ- সিস্টেম থাকে যা কাপড় থেকে ময়লা পরিষ্কার করার সাথে সাথে কাপড়ের ব্যাকটেরিয়া, ফাঙ্গাস এগুলো দূর করে।

৩) মূলত আমরা যেভাবে কাপড় ধুয়ে থাকি হাতে তাতে কাপরের মসৃণতা কমে যায়। কাপড় কম টেকে। কিন্তু ওয়াশিং মেশিনে  কাপড়ের মসৃণতা বজায় থাকে।

৪) পরিধানের কাপড় ছাড়াও মেশিনে গৃহস্থালী নানা জিনিস যেমন- পর্দা, বেডশিট, পাপোশ, কাপড়ের ব্যাগ ইত্যাদিও ধোয়া য্যা।

৫) ওয়াশিং মেশিনে কাপড় ধুলে ডিটারজেন্টের পরিমাণ কম লাগে।

ওয়াশিং মেশিনের যত্ন ও কিছু সাবধানতাঃ

১)ওয়াশিং মেশিন চালু করার আগে কাপড়ের ধরন অনুযায়ী অপশন নির্ধারন করে দিতে ভুলবেন না। যদি আপনার মেশিনে এরকম সিস্টেম থাকে- উল , কটন ইত্যাদি।

২) একসাথে বেশি কাপড় মেশিনে ধুতে দিবেন না।

৩) নিয়মিত মেশিন পরিষ্কার করুন।অনেক সময় ডিটারজেন্ট জমে গিয়ে মেশিনে ব্লকেজ সৃষ্টি করতে পারে। তাই কাপড় ধোয়া শেষে ভালো করে মেশিনের ভেতরটা পরিষ্কার করে ফেলবেন।

৪) ধুতে দেওয়া কাপড়ে কোনো ধরনের পিন বা বোতাম থাকলে তা আগে খুলে রাখবেন। কেননা এগুলো থাকলে কাপড় নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

৫)মেশিন ব্যবহার শেষ হওয়ার পর সুইচ অফ করতে ও প্লাগ অফ করতে ভুলবেন না।

৬) ওয়াশিং মেশিনের সাথে ভোল্টেজ স্টাব্লেজার ব্যবহার করুন, যাতে ভোল্টেজের ওঠানামায় মেশিনের কোনো সমস্যা না হয়।

৭) মাঝেমাঝে মেশিনের ভেতরে দুর্গন্ধ সৃষ্টি হতে পারে তাই দুই কাপ লেবুর রস বা ভিনেগার মেশিনের পানিতে মেশান এবং ২/৩ বার মেশিন অন অফ করুন। ভেতরটা চকচকে হবে ও দুর্গন্ধ দূর হবে।

৮) যে কাপড়ে রঙ উঠার সম্ভাবনা থাকে বা আগে রঙ উঠেছিলো এমন কাপড়ের সাথে অন্য কাপড় একসাথে ধুতে দিবেন না। এতে কাপড় নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

৯) বাসায় ছোট বাচ্চা থাকলে মেশিনের দরজা খোলা রাখবেন না এবং কানেকশন চেক করবেন। মেশিন চালু করার আগে একবার মেশিনের ভেতরটা চেক করে নিন।

মেশিন কেনার সময় করণীয়ঃ

১) মেশিন কেনার আগে মেশিনের ড্রাম সাইজ দেখুন। ছোট সাইজের ড্রাম হলে কাপড়ের পরিমান কম ধরবে। আর বড় সাইজের ড্রামে কাপড় ছাড়াও বড় কাঁথা, কম্বল, পর্দা , বেডশিটও ধোয়া যায়।

২) ওয়াশিং মেশিন কেনার সময় ‘ওয়াশিং মুড’ দেখে কিনুন। উল, সিল্ক, হ্যান্ড ওয়াশ ইত্যাদি উল্লেখ থাকে।

৩)মেশিন কেনার আগে ডিসপ্লে ও ব্যবহার পদ্ধতি দেখে নিন। কারণ ডিসপ্লে যদি জটিল হয় এবং ব্যবহার পদ্ধতি যদি সহজ না হয় তাহলে সেই মেশিন চালাতে আপনার ভোগান্তি পোহাতে হবে।

৪)ওয়াশিং মেশিনের স্পিন স্পিড দেখুন কেনার আগে। সাধারণত ১১০০ আরএমপি স্পিড হয়ে থাকে মেশিনের। ১৪০০ বা ১৬০০ আরএমপির স্পিন স্পিড সম্বলিত ওয়াশিং মেশিনে কাজ দ্রুত সম্পন্ন হবে।

৫) বাজারে এখন নানা ফিচার সম্বলিত ওয়াশিং মেশিন থাকে। তাই কেনার সময় মেশিন সম্পর্কিত সব ফিচার বুঝে ও চেক করেনিন।

 

প্রযুক্তি আমাদের অনেকভাবে সাহায্য করেছে। রান্নাঘর থেকে শুরু করে শোয়ার ঘর সবখানের গৃহস্থালী কাজকে সহজ করে দিয়েছে নানা মেশিনের মাধ্যমে। ওয়াশিং মেশিনও গৃহিনীদের জন্য প্রযুক্তির একটি আশীর্বাদ। বাজারের নানা ব্রান্ডের ওয়াশিং মেশিনের ভিড়ে আপনি বেছে নিতে পারেন Walton Washing Machine কে। ডিজাইন ও সার্ভিস এর দিক দিয়ে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন বেশ ভাল সাড়া ফেলেছে দেশের বাজারে। Osellers থেকে Walton Washing Machine কিনে বুঝে নিন নিশ্চিত ক্যাশব্যাক উপহার।


COMMENTS (No Comment)
Leave your comment